আইন-আদালত

সিলেটে চার পুলিশ বরখাস্ত তিনজন প্রত্যাহার

Written by CrimeSearchBD

সিলেট মহানগর এলাকার বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ফাঁড়ির তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। রোববার ভোরে বন্দর ফাঁড়িতে পুলিশি ‘নির্যাতনে’ রায়হান আহমদ নামে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষতে তাদের বরখাস্ত ও প্রত্যাহার করা হলো।
সোমবার বিকাল ৪টা ২৭ মিনিটে তাদের বরখাস্ত ও প্রত্যাহারের বিষয়টি সময়ের আলোকে নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) জ্যোতির্ময় সরকার।
প্রসঙ্গত, রোববার সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান উদ্দিন (৩৩) নামে যুবক নিহত হওয়ার অভিযোগ তোলেন তার স্বজনরা। নিহত ওই যুবক সিলেটের আখালিয়ার নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে মারা গেছে রায়হান।
তবে নিহতের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, পুলিশ ধরে নিয়ে নির্যাতন করে রায়হানকে হত্যা করেছে। পরিবারের অভিযোগে ভিত্তিতে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সিলেট মহানগর পুলিশ। পরে রোববার রাত আড়াইটার দিকে সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি।
আল্টিমেটাম : সিলেটের আখালিয়া এলাকার যুবক রায়হান আহমদ ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মারা গেছেÑ এমন অভিযোগ পরিবার, আত্মীয়স্বজন ও স্থানীয়দের। সোমবার পুলিশের বিরুদ্ধে এবং ‘হত্যাকারীদের’ ফাঁসির দাবিতে রায়হানের পরিবারের সদস্য, আত্মীয়স্বজন এবং স্থানীয়রা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে। এদিন বেলা ৩টায় অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে বিক্ষোভকারীরা আল্টিমেটাম দিয়ে বলেন, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে রায়হানের হত্যাকারীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে।
মোবাইল নম্বরটি কার? রোববার ভোর ৪টা ২০ মিনিটে রায়হানের মা সালমা বেগমের ফোনে ০১৭৮৩ ৫৬১১১১ নম্বর থেকে একটি কল আসে। ফোনটি তখন ধরেন রায়হানের চাচা হাবিবুল্লাহ। ফোন ধরার পর ওই প্রান্ত থেকে পরিচয় দেয় যে, সে তাদের ছেলে রায়হান। হাবিবুল্লাহ রায়হানের সুর চিনতে পারেন। এটা তার ফোন নম্বর ছিল না। এ সময় রায়হান কান্নাকাটি করে জানায়, পুলিশ তাকে বন্দরবাজার ফাঁড়িতে ধরে নিয়ে এসেছে। টাকা নিয়ে দ্রুত পুলিশ ফাঁড়িতে আসার জন্য।
বিষয়টি নিশ্চিত করে হাবিবুল্লাহ বলেন, পুলিশ ফাঁড়ি থেকে ফোন পেয়ে টাকা নিয়ে গেলেও আমার রায়হানকে বাঁচাতে পারলাম না। তাকে নির্যাতন করেই হত্যা করা হয়েছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) জ্যোতির্ময় সরকার সময়ের আলোকে জানান, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। নানা বিষয় মাথায় রেখে পুলিশ তদন্ত কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
গণপিটুনির প্রমাণ মেলেনি সিসি ক্যামেরার ফুটেজে : সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান উদ্দিন নামে এক যুবককে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার। ঘটনার প্রথম দিকে পুলিশ ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে রায়হানের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করলেও নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর ঘটনাটি তদন্তের আশ^াস দিয়েছেন তারা। তবে পুলিশ যেখানে গণপিটুনির কথা বলছে, সিটি করপোরেশনের সিসি ক্যামেরা ফুটেজে ওই এলাকায় এমন কোনো ঘটনার সত্যতা মেলেনি। স্থানীয় কাউন্সিলর ফুটেজ দেখে নিশ্চিত হয়ে এ দাবি করেন।

About the author

CrimeSearchBD