সারাদেশ

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাংবাদিক রাশিদুল আলম চাঁদ

Written by CrimeSearchBD
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও ইত্তেফাক পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি রাশিদুল আলম চাঁদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

রোববার (১০ মে) বেলা ১২টার দিকে দুই দফা নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্থানীয় সাংবাদিকদের আয়োজনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মরহুম সাংবাদিকের প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাযাপূর্ব এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী লুতফুল হাসান,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পপরিকল্পনা  কর্মকর্তা ডাঃ আশরাফুজ্জামান সরকার,উপজেলা কৃষি অফিসার সৈয়দ রেজা-ই-মাহমুদ, থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহিল জামান, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ছাদেকুল ইসলাম দুলাল, মাসুদ-উল ইসলাম চঞ্চল, প্রবীণ সাংবাদিক শাহজাহান মিঞা, মোশাররফ হোসেন বুলু, এ মান্নান আকন্দ, একেএম শামছুল হক, মরহুমের নিকট আত্মীয় জাহাঙ্গীর আলম প্রমূখ।

এরপর সাড়ে ১১টায় তাঁর গ্রামের বাড়িতে দ্বিতীয় নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। সেখানে দৈনিক ইত্তেফাক জেলা প্রতিনিধি তাজুল ইসলাম রেজাসহ স্থানীয় সুধিজন বক্তব্য রাখেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৮ মে)  জুম্মা নামাজ পরাকালীন সময়ে সাংবাদিক রাশিদুল আলম চাঁদ ব্রেইন স্ট্রোক করলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। এরপর শনিবার (৯ মে) সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

সাংবাদিক রাশিদুল আলম চাঁদ ১৯৮৬ সালে গাইবান্ধা থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক গণপ্রহরী পত্রিকা দিয়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। এরপর বগুড়া থেকে প্রকাশিত ও ঢাকা থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন পত্রিকায় দীর্ঘদিন কাজ করেন।

সর্বশেষ তিনি জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাকের উপজেলা প্রতিনিধি ও  স্থানীয় দৈনিক জনসংকেত পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ছিলেন। মফস্বল সাংবাদিকতায় নিবেদিত এই কলম সৈনিক টানা আট বছর ধরে উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। তিনি স্ত্রী ও দুই মেয়েসহ অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর বড় মেয়ে অনার্স প্রথম বর্ষ ও ছোট মেয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়াশোনা করছে।

এদিকে সাংবাদিক রাশিদুল আলম চাঁদের মৃত্যুতে জেলা ও উপজেলার গণমাধ্যম কর্মীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একজন মফস্বল সাংবাদিকের বিদায়ে শোকের ছাঁয়া নেমে আসে স্থানীয় রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও উপজেলা প্রশাসনে কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে।

তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক (দায়িত্বপ্রাপ্ত) আফরুজা বারী, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম সরকার,পৌর মেয়র আব্দুল্লাহ আল-মামুনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংষ্কৃতিক, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজ।

About the author

CrimeSearchBD

Leave a Comment

%d bloggers like this: