খেলাধুলা

করোনাভাইরাস : ইতালিতে বন্ধ সব ধরনের খেলা

Written by Mahmudul Hasan

বেশ কিছুদিন ধরেই ইতালিতে করোনাভাইরাস ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ায় সিরি-আ লিগ আয়োজন নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছিল। বেশ কয়েকটি ম্যাচ দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেও আয়োজিত হয়। কিন্তু ইতালিয়ান প্রধানমন্ত্রী জিসেপ্পে কন্টে গতকাল ঘোষণা দিয়েছেন আগামী ২ এপ্রিল দেশটিতে সব ধরনের খেলা বন্ধ থাকবে।

এর মধ্যে ইতালিয়ান সর্বোচ্চ লিগ সিরি-আ’ও রয়েছে। সরকারি এই ঘোষণার আগে সর্বশেষ ইতালিয়ান লিগে সাসোলো বনাম ব্রেসিয়ার ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। দর্শকবিহীন ম্যাচটিতে সাসোলো ৩-০ গোলে জয়ী হয়েছে।

প্রথম গোলটি দেবার পর সাসোলো স্ট্রাইকার ফ্রান্সেসকো কাপুটো এক টুকরো কাগজে নিজের লেখা একটি বার্তা সকলের উদ্দেশ্যে প্রদর্শন করেন, যেখানে লেখা ছিল ‘সবকিছু দ্রুতই ঠিক হয়ে যাবে। তোমরা সবাই ঘরে থাক।’

এর কয়েক ঘন্টা পরেই প্রধানমন্ত্রী দেশব্যপী সব খেলা বন্ধের ঘোষণায় প্রায় একই কথা উচ্চারণ করেছেন। টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্যে ভাসনে কন্টে বলেন, ‘আজ আমি নতুন একটি ফরমানে স্বাক্ষর করতে যাচ্ছি তার মূলকথা হলো : আমি ঘরেই থাকবো।’

ইতোমধ্যেই ইতালির বিভিন্ন প্রদেশে ব্যপকহারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় প্রতিদিনই নতুন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। মরনঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এরই মধ্যে ইতালিতে মারা গেছেন ৪৬৩ জন। ভাইরাসের উৎপত্তি স্থল চায়নার বাইরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ইতালি। সব মিলিয়ে ৯ হাজার ১৭২জন আক্রান্ত হবার পরপরই ইতালিয়ান সরকার সারা দেশে রেড এ্যালার্ট জারি করেছে। স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, সব ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

কন্টে বলেছেন, ‘সবকিছুই যেখানে আজ ক্ষতিগ্রস্ত সেখানে ফুটবল ম্যাচ আয়োজনের কোন অর্থ নেই। সকল সমর্থকদের কাছে আমি এজন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি, এর বিকল্প কিছু আমার হাতে ছিলনা। এমনকি এই মুহূর্তে জিমে যাওয়ারও অনুমতি আমরা দিতে পারছি না।’

সিরি-এ মৌসুমে ৩৮টি ম্যাচের মধ্যে ২৬টি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ল্যাজিওর থেকে এক পয়েন্ট এগিয়ে আটবারের চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস টেবিলের শীর্ষে রয়েছে। ৯ পয়েন্ট পিছিয়ে ও এক ম্যাচ হাতে রেখে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইন্টার মিলান। এখন প্রশ্ন উঠেছে সময়মতো লিগ শেষ করার। আগামী ২৪ মে এবারের মৌসুম শেষ হবার কথা রয়েছে। ৩ এপ্রিলের পর অন্তত তিন রাউন্ডের ম্যাচ পুনঃনির্ধারণ করতে হবে।

About the author

Mahmudul Hasan

Leave a Comment