ক্রাইম

কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ : সাইফুরসহ ৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিল

Written by CrimeSearchBD

সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমানসহ চারজনের ছাত্রত্ব ও সনদ বাতিল করেছে জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়। সেই সঙ্গে এমসি কলেজ থেকে তাদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।
এমসি কলেজের অধ্যক্ষ মো. সালেহ আহমদ এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মাহফুজ ব্যতীত অন্যরা এমসি কলেজের সাবেক ছাত্র ছিল। সিন্ডিকেট সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ।
ছাত্রত্ব বাতিল হওয়া চার শিক্ষার্থী হলোÑ বিএসএস ডিগ্রি পাস কোর্সের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের (অনিয়মিত) ছাত্র সাইফুর রহমান (২৮), তার রেজিস্ট্রেশন নম্বর ২৯৪৯৪১৩। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি মাস্টার্স ফাইনাল বর্ষের শাহ মাহবুবুর রহমান ওরফে রনি (২৫), রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৬৩১১০২৩১৪২। বিএসএস ডিগ্রি পাস কোর্সের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের রবিউল ইসলাম (২৫), রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৩১০২০৫১২৪৮ এবং ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্স ফাইনাল বর্ষের মাহফুজুর রহমান (২৫), রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৭৩১১০২৪৪৮৪।
এর আগে এমসি কলেজের অধ্যক্ষ মো. সালেহ আহমদ চারজনের ছাত্রত্ব ও সনদ বাতিলের আবেদন করেন। লিখিত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার ওই চারজনের ছাত্রত্ব এবং সার্টিফিকেট বাতিল করা হয়। চারজনই এমসি কলেজের ছাত্র ছিল।
প্রসঙ্গত, ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে স্বামীকে বেঁধে রেখে এক তরুণীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগ নামধারী এ নেতাকর্মীরা। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে ভর্তি করে পুলিশ।
ধর্ষণের ঘটনায় পরদিন এসএমপির শাহপরাণ থানায় ছয়জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনকে আসামি করে মামলা করেন তরুণীর স্বামী। ২৭ সেপ্টেম্বর ভিকটিমের জবানবন্দি রেকর্ড করেন সিলেট মহানগর তৃতীয় আদালতের হাকিম শারমিন খানম নিলা। এ ঘটনায় ৮ আসামিকে গ্রেফতার করে তাদের পাঁচ দিন করে রিমান্ড শেষে প্রত্যেকে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বর্তমানে আসামিদের সবাই কারাগারে রয়েছে।

About the author

CrimeSearchBD

%d bloggers like this: