সারাদেশ

করোনায় প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে ‘টিপিএফ’র টেলিমেডিসিন সেবা

Written by CrimeSearchBD

করোনাভাইরাসে গ্রামের মানুষ যাতে কোনো প্রতারণার শিকার না হন, সেজন্য কাপাসিয়ার টোকের তরুণ পেশাজীবীরা মিলে টেলিমেডিসিন সেবা দিচ্ছে। দিন কয়েক আগে চালু করা এ সেবা থেকে প্রায় ৩৫ জন ভুক্তভোগী নারী পুরুষ সঠিক সমাধান পেয়েছেন।

বিশেষ করে কাপাসিয়া উপজেলায় সবচেয়ে অঞ্চল টোক ইউনিয়ন। ইউনিয়নের প্রায় ২৫ টি গ্রাম। ওসব গ্রামের মানুষ করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে বেশ অসচেতন ও চিকিৎসা বিষয়ে অজ্ঞ। তাদের মধ্যে সচেতনা ও হেলাফেলা রোধ করতে ‘টোক পেশাজীবী ফোরাম (টিপিএফ)’ নামে এলাকার সামাজিক সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় তারা গেল সপ্তাহে করোনায় তথ্য ও চিকিৎসা পরামর্শ সেল খুলে।

সংগঠনের সভাপতি আশরাফ উদ্দিন আসিফ জানান, টোক ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে তারা টেলিমেডিসিন সেবার বিস্তারিত জানিয়ে ব্যানার টানিয়ে দেন। ব্যানার দেখে রোজই একাধিক ফোনকল পান। করোনায় ভুক্তভোগীদের নানাবিধ সমস্যার তাৎক্ষণিক সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করেন টেলিমেডিসিন সেবায় নিয়োজিত টিপিএফ সদস্যরা।

অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা আসিফ আরও বলেন, আমরা এ সেবা সঠিকভাবে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে সার্বক্ষণিক সংগঠনের ৫ জন সদস্য কাজ করছেন। একজন চিকিৎসক, দুই জন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, একজন স্বাস্থ্যকর্মী যিনি কাপাসিয়া উপজেলায় মাঠ পর্যায়ের কাজ করছেন এবং একজন মেডিকেল প্রমোশন অফিসার। তারা সবাই কোভিড-১৯ যুদ্ধের ফ্রন্টলাইনার।

টিপিএফ’র সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক সুমন জানান, সংগঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্যরা এই সেবা কার্যক্রমটি সুপারভিশন করছেন। করোনা পরিস্থিতি উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত টেলিমেডিসিন সেবা চলবে। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে যে-কেউ সংগঠন হটলাইনে ফোন করে সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

তারা জানান, বাড়ি গিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহে সহযোগিতা, জরুরি এম্বুল্যান্স সার্ভিস, হাসপাতালে ভর্তি পরামর্শ ও বাসায় চিকিৎসা সেবাসহ করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে যাবতীয় ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছে ‘টোক পেশাজীবী ফোরাম’। সংগঠনের সঙ্গে যুগপৎভাবে সহায়তা করছে কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পরিষদ (বিএমটিপি) ও বাংলাদেশ এম্বুল্যান্স মালিক কল্যাণ সমিতি।

About the author

CrimeSearchBD

%d bloggers like this: