সারাদেশ

এবার আলোচনায় মেট্রোরেলের অগ্রগতি

Written by CrimeSearchBD

মেট্রোরেলের অগ্রগতিসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে সভা হতে যাচ্ছে আজ। সভার আয়োজক ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ পরিচালনা পরিষদ। এটি পরিষদের দ্বিতীয় সভা। এক বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সভায় অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছেÑ ইউটিলিটি সেবা প্রদানকারীর সড়ক খনন, ফুলবাড়িয়ায় সিটি বাস টার্মিনাল নির্মাণ, অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধ করা, ফুটপাথ দখলমুক্ত করা, অবৈধ পার্কিং বন্ধে গঠিত কমিটির কার্যক্রম অগ্রগতি, অটোমেটিক সিগন্যালিং সিস্টেম চালু করা, ঢাকা ঘিরে রিং রোডের কার্যক্রমের অগ্রগতি পর্যালোচনা ইত্যাদি। সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ও পরিষদের চেয়ারম্যান ওবায়দুল কাদের ভার্চুয়ালি উপস্থিত থেকে সভায় সভাপতিত্ব করবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
সূত্রটি জানায়, সভার শুরুতে মূলত আগের সভার অর্থাৎ ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্তের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হবে। এরপর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকবে মেট্রোরেল। মেট্রোরেল নির্মাণকে কেন্দ্র করে যাতে জনসাধারণের কোনো ধরনের ভোগান্তি না হয় এ ব্যাপারে একটি দিকনির্দেশনা থাকলেও, তা কতটুকু কার্যকর হচ্ছে সে বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসতে পারে। মেট্রোরেলের লাইনের সম্ভাব্য অ্যালাইনমেন্ট হবে গাবতলী থেকে বেড়িবাঁধ সড়ক ধরে বসিলা, মোহাম্মদপুর, বিআরটিসি বাসস্ট্যান্ড, সাত মসজিদ রোড, ঝিগাতলা, ধানমন্ডি ২ নম্বর, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, নিউমার্কেট, নীলক্ষেত, আজিমপুর, পলাশী, শহীদ মিনার, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, পুলিশ হেডকোয়ার্টার, গোলাপশাহ মাজার, বঙ্গভবনের উত্তর পাশের সড়ক মতিঝিল, আরামবাগ, কমলাপুর। তবে সম্ভাব্য সমীক্ষায় এটি মুগদা, মান্ডা, ডেমরা ও চিটাগাং রোড পর্যন্ত বিস্তৃত হতে পারে। এ ব্যাপারে ইতোমধ্যে পরার্মশক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে আভাস দেওয়া হয়।
আজকের সভায় আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে কমলাপুর-নারায়ণগঞ্জ রেলওয়ের পাশ দিয়ে প্রায় ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ আন্ডারগ্রাউন্ড রেল কিংবা উড়াল মেট্রোরেল লাইন নির্মাণের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হতে পারে। এই লাইন নারায়ণগঞ্জ শহরকে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সংযুক্ত করবে। তবে ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের জন্য একটি সমন্বিত পরিবহন পরিকল্পনা তৈরির জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই করা হবে বলে জানা গেছে।
সরকার পরিচালনায় থাকা আওয়ামী লীগের নির্বাচনি ইশতেহারে ঢাকা ঘিরে একটি এলিভেটেড রিং রোড ও ইস্টার্ন বাইপাস নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে এই বিষয়টির অগ্রগতি পর্যালোচনা হতে পারে। পরিবহন সেক্টরে ই-টিকেটিং সিস্টেম চালুর মাধ্যমে ‘সব পরিবহনে এক কার্ড’ প্রর্বতনের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে। মেট্রোরেলের ট্রান্সপোর্ট হাব নিয়ে আজকের সভায় পর্যালোচনাসহ এর অগ্রগতির বিষয়টি গুরুত্ব পেতে পারে। তবে গত সভায় জানানো হয়, হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, কমলাপুর স্টেশন, মহাখালী বাসস্ট্যান্ডকে বিআরটিএ-এর আওতায় ট্রান্সপোর্ট হাব হিসেবে পুনর্গঠন করা হবে।
বর্তমানে আন্তঃজেলা বাস ঢাকা মহানগরীর সিটি বাস টার্মিনাল থেকে যাতায়াত করে। ঢাকা শহরে এটি যানজটের কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন থেকে। পাশাপাশি ‘বাস বে’ যথাযথ ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়। এ নিয়ে গত সভায় আলোচনা হলেও আজ তার অগ্রগতি আলোচনায় উঠে আসতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। এ ছাড়াও পরিবেশ দূষণ কমানোর জন্য শহরে সিটি ফরেস্ট থাকার বিষয়টি গত আলোচনায় গুরুত্ব পায়।
এদিকে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে আভাস পাওয়া গেছে, আজকের সভায় আবারও যানজট নিরসনে সবাইকে সম্মিলিত কাজ করার জন্য আহ্বান জানানো হতে পারে। সড়কে যেকোনো উন্নয়ন কাজের ক্ষেত্রে ট্রাফিক জটিলতা যেন সৃষ্টি না হয় সে বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব পেতে পারে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আজকের পরিচালনা পরিষদের সভায় দুই সিটি করপোরেশনের মেয়র, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র, জননিরাপত্তা বিভাগ সচিব, সচিব সেতু বিভাগ, রেলপথ মন্ত্রণালয় সচিব, নৌপরিবহন সচিব, মহাপুলিশ পরিদর্শকসহ অন্যান্য সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

About the author

CrimeSearchBD

%d bloggers like this: